মেনু নির্বাচন করুন
পাতা

ঈদগাহ

অত্র ইউনিয়নে প্রায় ৪৫ টি ঈদগাহ ময়দান আছে

 

উল্লেখ্যযোগ্য মাঠগুলো হল..........

১। মধুপুর কেন্দ্রীয় ঈদগাহ মাঠ।

২। সবদল কেন্দ্রীয় ঈদগাহ মাঠ।

৩। খারুভাজ কেন্দ্রীয় ঈদগাহ মাঠ ।

৪। বিভার কেন্দ্রীয় ঈদগাহ মাঠ ।

৫। বারবিশা কেন্দ্রীয় ঈদগাহ মাঠ ।

৬। মদনপুর কেন্দ্রীয় ঈদগাহ মাঠ ।

৭। টিপার বাজার কেন্দ্রীয় ঈদগাহ মাঠ ।

৮। রইসবাগ কেন্দ্রীয় ঈদগাহ মাঠ ।

৯। টেপার হাট কেন্দ্রীয় ঈদগাহ মাঠ ।

১০। সারপুকুর চওড়াটারী কেন্দ্রীয় ঈদগাহ মাঠ ।

১১। সারপুকুর কেন্দ্রীয় ঈদগাহ মাঠ ।

১২। মাষ্টার পাড়া কেন্দ্রীয় ঈদগাহ মাঠ ।

১৩।  সরল খাঁ কেন্দ্রীয় ঈদগাহ মাঠ ।

 

ঈদগাহ

ঈদগাহ (উর্দু: عید گاہ‎) শব্দটি দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোতে ব্যবহৃত হয়। ঈদগাহ বলতে খোলা আকাশের নিচে ঈদুল ফিতর এবং ঈদুল আযহার নামাজ আদায়ের জন্য খোলা মাঠকে বোঝায়। বছরের অন্যান্য সময়ে এই মাঠে নামাজ পড়া হয় না। ঈদের দিন সকালে মুসলমানগণ পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন হয়ে, পারতপক্ষে নতুন পোশাক পরে ঈদ্গাহে জমায়েত হয়। যদিও ঈদগাহ দক্ষিণ এশিয়ার শব্দ এবং এর মূল ঊর্দুতে খুঁজে পাওয়া যায় কিন্তু বিশ্বের সকল দেশের মুসলমানগন ঈদের নামাজ খোলা মাঠে আদায় করে।

 

শরীয়াতে ঈদগাহ

 
চৌদ্দ শতকের ঈদিগাহ, দিল্লির তুঘলক শাসনামলে নির্মিত

ঈদগাহে নামাজ আদায়ের ব্যাপারে শরীয়তের কিছু সুস্পষ্ট বিধান আছে।

  • মসজিদের ঈদের নামাজ পড়লে হবে কিন্ত্য ঈদগাহে নামাজ পড়া হচ্ছে সুন্নত।
  • সুন্নত অনুসারে, শহরে ঈদের নামাজ পড়ার চেয়ে শহরের বাইরে উন্মুক্ত আকাশের নিচে খোলা মাঠে ঈদের নামাজ পড়া উত্তম এবং পূণ্যের কাজ
  • ঈদের মাঠে জমায়েত হওয়ার মাধ্যমে সৌহাদ্য, সম্প্রীতি এবং ভ্রাতৃত্তবোধ বৃদ্ধি পায়। সেজন্য অনেকগুলো ছোট ঈদগাহের তুলনায় সম্ভাব্য বড় ঈদগাহ তৈরী করা উচিত।
  • ঈদগাহে ঈদের নামাজ পড়া সুন্নতে মুয়াক্কাদা। কিন্তু ইসলামী চিন্তাবিদগণ মত প্রকাশ করেন যদি ঈদগাহের দূরত্ব অনেক বেশি হয় অথবা কেউ বৃদ্ধ বা অসুস্থ থাকেন তাহলে নিকটস্থ মসজিদে ঈদের নামাজ পড়তে পারবেন।
  • শাহী ঈদগাহ

     সিলেট শহরের উত্তর সীমায় শাহী ঈদগাহ বা ঈদগাহ মাঠের অবস্থান। বাংলাদেশের প্রাচীনতম ঐতিহাসিক স্থাপনা সমুহের মধ্যে ১৭০০ সালের প্রথম দিকে নির্মিত সিলেটের শাহী ঈদগাহকে গণ্য করা হয়।

ছবি



Share with :

Facebook Twitter